সাঁতারু নির্যাতনের অভিযোগ এনে চলে গেলেন কোচ তাকেও ইনোকি

সাঁতারু নির্যাতনের অভিযোগ এনে ক্যাম্প ছেড়ে চলে গেছেন জাপানী কোচ তাকেও ইনোকি। ক্যাম্পে মোবাইল ফোন ব্যবহারকে কেন্দ্র করে রোববার ঘটেছে এমন ঘটনা। এস এ গেমসের অল্প কদিন আগে কোচ ইস্যুতে বিপাকে পড়েছে ফেডারেশন। ঘটনা তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করেছেন সাধারণ সম্পাদক এমবি সাইফ।

গেল মাসে সাঁতার দলের দায়িত্ব নিতে ঢাকায় পা রাখেন তাকেও ইনোকি। মাসখানেক স্থায়ী হলো তার বাংলাদেশ অধ্যায়।

রোববার হঠাৎই ক্যাম্পে ছেড়ে দেশে ফিরে যান জাপানী কোচ। গত সোমবার ফেসবুকে স্ট্যাটাসে জানান আসল কারণ। জুনিয়র সাঁতারুদের মোবাইল ফোন ব্যবহারের অপরাধে রোদে দাড় করানো, খালি পুলে ফেলে দেয়ার চেষ্টাসহ নানা অভিযোগ তুলে ধরেছেন তিনি। মানবিকতায় আঘাত লাগায় সিদ্ধান্ত নেন পতদ্যাগের। যদিও ফেডারেশনের দাবি, বিনা নোটিশে চলে গেছেন কোচ।

সাঁতার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এম বি সাইফ বলেন, ঘটনা তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি করেছে ফেডারেশন। যাদেরকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

কোচ কান্ডে দিশেহারা ফেডারেশন, এস এ গেমসের পরিকল্পনায়ও আনছে ব্যাপক পরিবর্তন। চীনের পরিবর্তে নেপালে ক্যাম্প করার চিন্তা করছেন সাধারণ সম্পাদক।

এস এ গেমসের বিভিন্ন ডিসিপ্লিনেই চলছে এমন নানা সমস্যা। টেবিল টেনিস তারই একটি। খেলোয়াড়দের সাথে ফেডারেশনের দ্বন্দ্ব নিরসনে কাজ করার পথে বলে দাবি করেছেন সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম।

খেলোয়াড়দের দাবি মেনে কোচিং প্যানেল বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে টেবিল টেনিস ফেডারেশন। দুই ভারতীয় কোচ ও প্র্যাক্টিস পার্টনারের সাথে যোগ দেবেন আরও তিনজন। ২৩ ও ২৪ অক্টোবর হবে এস এ গেমসের জন্য চূড়ান্ত দল বাছাই।