ম্যাচ প্রিভিউ : তবে কি আর্জেন্টিনা, পর্তুগাল ও স্পেনের সঙ্গী হবে ব্রাজিল?

0
59

চারবছর পর গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ ফুটবলের মহাযজ্ঞ এবার পুতিনের রাশিয়ায়। গ্রুপ পর্ব পার হয়ে খেলা গড়িয়েছে শেষ ১৬ তে, এরই মধ্যে বিদায় নিয়েছে বিশ্বকাপ জেতার আসায় দেশ ছেড়ে আসা হট ফেভারিট দলও। গতবারের বিশ্ব কাপজয়ী জার্মানি তপ এবার গ্রুপ পর্বেই বিদায় নিয়েছে। গতকাল নক-আউট স্টেজের প্রথম ম্যাচে ফ্রান্সের কাছে হেরে বাড়ির পথ ধরেছে আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ের কাছে হেরে একই পথের পথিক ক্রিষ্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগালও।

 

নানা ঘটনা, অঘটনের জন্ম দেওয়া এবারের বিশ্বকাপে কোয়াটারে উঠার লড়াইয়ে সোমবার রাতে মাঠে নামছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। প্রতিপক্ষ জার্মানি, সুইডেন, কোরিয়ার গ্রুপ থেকে রানার্স আপ হয়ে উঠে আসা হাভিয়ের হার্নান্দেজের মেক্সিকো।

 

গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ড্র দিয়ে যাত্রা শুরু হয় নেইমারের ব্রাজিলের। কোতিনহোর গোলে কোনরকমে ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে সেলেসাওরা। পরের ম্যাচে ভালো খেলেও নির্ধারিত ৯০ মিনিটে কোস্টারিকার জালে বল ঢুকাতে পারেনি রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে খেলা কোস্টারিকান গোলকিপার কেইলর নাভাসের জন্য, পুরো ম্যাচে একাই চীনের প্রাচীর হয়ে মাঠে ছিলেন। কিন্তু অতিরিক্ত মিনিটে প্রথমে কোতিনহো পরে নেইমারের গোলে ঠিকই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। আর শেষে সার্বিয়ার বিপক্ষে পাওলিনহো আর সিলভার গোলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নক-আউট স্টেজে পা দেয় সেলেসাওরা।

 

এবারের বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত ব্রাজিলের সেরা পারফর্মার কোতিনহো। প্রথম দুই ম্যাচে দুই গোল আর শেষ ম্যাচে দুর্দান্ত এক এসিস্ট, মাঝমাঠ একাই সামলান এই জাদুকর। ব্রাজিলের প্রানভোমরা নেইমার ইঞ্জুরি থেকে ফিরে এসে প্রথম দিকে নিজের চেনা রুপে ফিরতে না পারলেও প্রতি ম্যাচে উন্নতি করছেন। তিন ম্যাচে এক গোলের পাশাপাশি করেছেন এক টা এসিস্টও, নিজের চেনা রুপটাও হয়তো শীঘ্রই ফিরে পাবেন। কিন্তু নামের প্রতি একেবারে সুবিচার করতে পারছেন না ম্যানসিটির হয়ে দুর্দান্ত খেলা গ্যাব্রিয়েল জেসুস, চেলসির উইলিয়ান এতই নিষ্প্রভ যে ব্রাজিলের রাইট উইং আছে কি না তা’ও বোঝা বড্ড মুশকিল!

 

ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় শক্তির জায়গা ডিফেন্স, মিরান্ডা, সিলভারা চীনের প্রাচীরের মতো গোলবারের সামনে বল আটকিয়ে রাখে, মার্সেলো তো দুর্দান্ত খেলছেন, শেষ ম্যাচে তার বদলী হিসেবে নামা লুইসও নিজের নামের প্রতি সুবিচার করেছেন। স্বভাবতই এ পর্যন্ত এলিসন বেকারকে ফাকি দিয়ে বল জালে জড়িয়েছে একবারই।

 

ঐ দিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে হারিয়ে অঘটনের জন্ম দেওয়া মেক্সিকানরা জয় পেয়েছে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেও। শেষ ম্যাচে সুইডেনের কাছে ৩-০ গোলে হেরে রানার্স আপ হয়ে শেষ ষোলোতে উঠলেও তাদের অবহেলা করার কোন সুযোগ নেই। গোলবারের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা ওচোয়ার উপরে ভরসা করতেই পারে মেক্সিকো, এবারের বিশ্বকাপে অন্যতম সেরা গোলবারের অতীন্দ্র প্রহরী এই ফুটবলার। এই দলটা ব্রাজিলকে হারিয়ে দিলেও অবাক হবার কিছু থাকবেনা!

ব্রাজিলের আশার প্রদীপ নেইমার // Source: DNA India

 

কালকের ম্যাচে মেক্সিকোর সম্ভাব্য একাদশ হবে,

ওচোয়া, মিগুয়েল, হুগো, কার্লোস সেলকাডো, জেসাস, হেক্টর হেরেইরা, জোনাথন সান্তোস, গুয়ারাদাদো, ভেলা, লোজানো এবং প্রথম মেক্সিকান হিসেবে গোলের হাফসেঞ্চুরির মাইলফলক স্পর্শ করা হাভিয়ের হার্নান্দেজ।

 

ফরমেশন: ৪-২-৩-১

 

তবে মেক্সিকোকে ভুগতে হবে দুই হলুদ কার্ডের কারনে খেলতে না পারা দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হেক্টর মারিনোর জন্য।

সময়ে সময়ে জ্বলে উঠছে মেক্সিকো-ও // Source: Sports Illustrated

 

সেলেসাওরা তাদের পূর্বের একাদশ নিয়েই মাঠে নামছে, শুধু চেঞ্জ হতে পারে এক জায়গায়। প্রথম থেকে নাও খেলতে পারেন গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে চোট পাওয়া মার্সেলো, তার বদলে প্রথম থেকে শুরু করতে পারেন ফিলিপে লুইজ। তাছাড়া গোলবারে এলিসন বেকার, ডিফেন্সে ফাগনার, সিলভা মিরান্ডা, ক্যাসিমারো, মিডফিল্ডে কোতিনহো, পাওলিনহো, আর সামনে উইলিয়ান, নেইমার, আর গ্যাব্রিয়েল জেসুস।

 

তিতের ট্যাকটিসে প্রতি ম্যাচেই ক্যাপ্টেন গুরু দায়িত্ব টা বদল হয়, মেক্সিকোর বিপক্ষে তাই অধিনায়কের বাহুবন্ধনী হাতে পড়ছেন থিয়াগো সিলভা।

ফরমেশন, ৪-২-৩-১

জার্মানি, আর্জেন্টিনা আগেই বিদায় নিয়েছে, এবার মেক্সিকান রা অঘটন ঘটিয়ে দিলেই জৌলুস হারিয়ে ফেলবে বিশ্বকাপ। দায়িত্বটা নেইমারদের কাঁধে, বিশ্বকাপের রং টা নষ্ট না করার, নিজেদের জার্সি তে আরো একটা তারা যুক্ত করার।

মিশন হেক্সার বাস্তবায়ন এবার না করলে আর কবে!

 ______________

লিখেছেন

মুজাহিদ ইসলাম জাহিদ