মেসির বাড়ীর খোঁজে বার্সেলোনার পথে পথে

0
59
শাহিদুল কবির (বার্সেলোনা থেকে) প্যারিস থেকে যাবার সময় তিনটি স্বপ্ন নিয়ে বার্সেলোনা গিয়েছিলাম। ক্যাম্প ন্যুতে বসে খেলা দেখা, ক্যাম্প ন্যুর পিচে নামা আর মেসির বাড়ি খুঁজে বের করা।

১ম এবং ২য় টা সহজে হয়ে গেলেও ৩য় টা ছিলো প্রায় অসম্ভব। মেসির বাড়ি খুঁজে বের করা!!!

কারণ মেসির বাড়ির ঠিকানা গুগলেও নেই। কত নাম্বার রোড কতো নাম্বার বাসা কিছুই না। দুদিন ধরে গুগল, আর ইউটিউব খুঁজে এতোটুকু বের করলাম সে ক্যাসেলফিল্ডে থাকে বিচের আশেপাশে।

সকালবেলা উঠেই রওনা দিলাম সেই বিচের উদ্দেশ্য কারণ বিকালে প্যারিস ফিরতে হবে। সম্বল শুধু গুগল থেকে বের করা মেসির বাড়ির একটা ছবি।

বীচের পাশে বাস থেকে নামার পর পাহাড়ের আঁকা বাঁকা রাস্তা বেয়ে উপরে উঠা শুরু করলাম। তার বাড়ি বের করতে কেমন কষ্ট হয়েছে তা বোঝানো যাবেনা। হাল যখন ছেড়ে দিচ্ছিলাম তখন বৌ বলে উঠলো “দেখো এই বাসায় স্টেডিয়ামের লাইটের মতো দেখা যায়”

চোখে ভেসে উঠলো মেসির বাড়ির মাঠ। এইতো এটাই মেসির বাড়ি। আমার খুশি দেখে কে।
৪৫ মিনিট খাড়া পথে হাঁটার পর দম আসছিলো আর যাচ্ছিলো।
মেসির বাড়ির আসে পাশে যতো সিসিটিভি ক্যামেরা দেখলাম, আমাদের পুরা বাংলাদেশে হয়তো এর চেয়ে কয়েকটা বেশি হবে।

গেটের সামনে গিয়ে দাঁড়ানোর সাথে সাথেই গেইট খুলে গেলো। গার্ড বের হয়ে এসে বললো “হোলা” এরপর স্প্যানিশ ভাষায় যা বললো তাতে বুঝলাম এখানে দাঁড়ানো যাবেনা। আমি ওর কাছে জানতে চাইলাম এইটা কি মেসির বাড়ী?

সে বললো- হ্যাঁ এইটা মেসির বাড়ী।
বললাম, ছবি তুলে চলে যাবো।

নরমালি ছবি তুলতে দেয়না কিন্তু আমি ইংলিশে কথা বলায় বুঝেছে আমি অন্য কোথাও থেকে এসেছি তাই বললো “Ok but just 1 photo”!!!

Image may contain: 1 person, shoes, basketball court and outdoor
অবশেষে শাহিদুল কবির খুঁজে পেলেন কাঙ্ক্ষিত লিওনেল মেসির বাড়িটি।

হাসি মুখে বললাম-Thank you!  আর মনে মনে বললাম “আমার ভাই যদি জানে তুই আমারে এমনে ভাগাই দিছস তাইলে তোর চাকরি যাবে”

অনেকের কাছে এসব হাসির কাজ, পাগলামি কিন্তু আমার কাছে এসব হচ্ছে স্বপ্ন পুরণ করা আর যেটা সবার পক্ষে সম্ভব হয়না।

You can always make money
But you can’t always make memories