বড় জয়ে সিরিজ শুরু অস্ট্রেলিয়ার

তিন বছর পর অবশেষে আবারো মাঠে ফিরেছে দুই দেশের দুই কিংবদন্তি ক্রিকেট পরিবারের নামে নামকরন করা চ্যাপেল-হ্যাডলি সিরিজ। ঘরের মাঠে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে এমসিজিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলতে নেমেছিলো অস্ট্রেলিয়া। তবে করোনাভাইরাস আতঙ্কে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে দর্শকশূন্যভাবে৷

টসে জিতে প্রথম ব্যাটিংয়ে নেমে দূর্দান্ত শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। ওপেনিংয়ে আসে শতরানের জুটি। দলীয় ১২৪ রানে ব্যাক্তিগত ৬৭ করা ওয়ার্নার ফার্গুসনের বলে আউট হয়ে গেলে অধিনায়ক ফিন্সের সাথে সুন্দর এই জুটি থেমে যায়। ওয়ার্নারের পর বেশীক্ষণ টিকতে পারেনি ফিন্সও৷ দলীয় ১৪৫ রানে ব্যাক্তিগত ৬০ রান করে তিনিও আউট হয়ে যান।

মূলত এরপরেই ব্যাটিংয়ে ধ্বস নামে টিম অস্ট্রেলিয়ার৷ স্টিভেন স্মিথ, অ্যালেক্স ক্যারি কিংবা আর্চি শর্ট, কিউট বোলারদের সামনে দাঁড়াতে পারেননি কেউ। স্রেফ মিশেল মার্শকে নিয়ে একটু লড়াই চালিয়ে গিয়েছেন একপ্রান্ত আগলে রাখা মার্নাশ লাবুশেন৷

তবে প্রথমে ব্যাক্তিগত ২৭ করে মার্শ এবং শেষ পর্যন্ত ৫২ বলে ৫৬ করা লাবুশেন আউট হয়ে গেলে অস্ট্রেলিয়ার রানের চাকা থমকে যায়। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে স্বাগতিকদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২৫৮/৭।

কিউইদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন ইশ সোধি। ২ টি করে উইকেট পান সান্তনার এবং ফার্গুসন।

Image result for new zealand vs australia

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দেখেশুনেই শুরু করেন দুই কিউই ওপেনার মার্টিন গাপটিল এবং হেনরি নিকোলস। তবে তাদের এই জুটি বেশীক্ষণ টিকতে দেয়নি হ্যাজলউড। দলীয় ২৮ রানে ব্যাক্তিগত ১০ করা হেনরি নিকোলসকে আউট করে দলের পক্ষে দ্রুত ব্রেকথ্রু এনে দেন এই পেসার।

এরপর অধিনায়ক উইলিয়ামসনকে নিয়ে হাল ধরেন গাপটিল। এই দুজনের জুটি থেকে আসে ৩৬ রান। এরপর অধিনায়ক আউট হয়ে যাওয়ার পর বেশীক্ষন টিকতে পারেনি অভিজ্ঞ রস টেইলরও। কিন্তু একপ্রান্ত আগলে রেখে ঠিকই কিউইদের ভরসা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন ওপেনার মার্টিন গাপটিল।

তবে দলীয় ৮২ রানে নিউজল্যান্ডকে আবারো ধাক্কা দেন প্যাট কামিন্স। ৪০ করা গাপটিলকে স্টিভেন স্মিথের ক্যাচ বানিয়ে সাজঘরে ফেরালে চাপে পরে যায় সফরকারীরা।

এরপর উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান লাথাম কিউইদের জন্য কিছুটা স্বস্তি এনে দেন৷ প্রথমে নিশাম এবং পরে গ্রান্ডহোমকে নিয়ে বিপর্যয় ঠেকানোর চেষ্টা করেন। তবে ৩৮ করা লাথামকে হ্যাজলউড এবং ২৫ করা গ্রান্ডহোমকে জাম্পা প্যাভিলিয়নে পাঠিয়ে দিলে নিউজল্যান্ডের হারটা সময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়।

শেষ পর্যন্ত ১৮৭ রানেই অল-আউট হয়ে যায় কিউইরা। আর ৭১ রানের বড় জয়ে সিরিজ শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। অজিদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ টি করে উইকেট পান মিচেল মার্শ এবং প্যাট কামিন্স। ২ টি উইকেট নেন হ্যাজলউড এবং জাম্পা।

এই জয়ে চ্যাপেল হ্যাডলি ওয়ানডে সিরিজে আপাতত ১-০ তে এগিয়ে গেলো স্বাগতিকরা। সবমিলিয়ে সর্বোচ্চ ৫ বার সিরিজ জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। এবার অজিদের পেন্টা থেকে হেক্সা হবে নাকি কিউইরা ঘুরে দাঁড়াবে? সেটাই দেখার বিষয়।