বেনজেমায় ভয়, বেনজেমাতেই রিয়ালের রক্ষা

0
133

১৯৮১-৮২ মৌসুমের পর সান্তিয়াগো বানার্ব্যুতে প্রথমবারের মতোন ঐতিহ্যবাহী সাদা জার্সি না পরে সবুজ কালারের জার্সি পরে মাঠে নামে রিয়াল মাদ্রিদ। “পৃথিবীকে রক্ষার জন্য” পরিবেশ কে বাঁচানোর মিছিলে সমর্থন জানিয়েই এই উদ্যোগ।

৪-৩-৩ ফর্মেশনে রিয়ালের হয়ে অনেকদিন পর মাঠে নামে ভিনিসিয়াস জুনিয়র। অন্যদিকে মার্সেলোর ইঞ্জুরিতে একাদশে জায়গা হয় ফারলান মেন্ডির।

ম্যাচের শুরু থেকেই চলতে থাকে দুই দলের আক্রমণ প্রতি-আক্রমণ। ৫ মিনিটেই ভিনিসিয়াসের অসাধারণ শট ঠেকিয়ে দেয় এস্পানিওলের গোলরক্ষক। এরপর ১১ মিনিটে রদ্রিগোর দূরপাল্লার শট গোলবারের দূর থেকেই বাইরে চলে যায়। ২ মিনিট পরেই ভিনিসিয়াসের এসিস্টে বল পেয়েও বাইরে মারে করিম বেনজেমা।

অপরদিকে কম যান নি এস্পানিওলের ফুটবলাররাও। প্রতি আক্রমনে রিয়ালের শক্ত ডিফেন্স ভেঙে ফেলার চেষ্টা করেছে বারবার৷ ২৭ মিনিটে আবারো ভিনিসিয়াসের শট ফাঁকি দিতে পারে নি এস্পানিওলের গোলরক্ষককে। এর ১ মিনিট পরেই হেড থেকে আসা বল অসাধারণ সেভ করে মাদ্রিদ কে বাঁচিয়ে দেন থিবো কর্তোয়া।

৩৬ মিনিটে মেন্ডির কাছে থেকে বল পেয়ে গোলমুখে জোরালো এক শট করেন ভালভার্দে, কিন্তু এবারও এস্পানিওলের গোলরক্ষক অসাধারণ এক সেভ করে অতিথিদের বাঁচিয়ে দেন। তবে একটু পরেই ঠিকই স্বাগতিকদের আনন্দে ভাঁসান ফ্রেঞ্চ ডিফেন্ডার রাফায়েল ভারানে। ৩৭ মিনিটে বেনজেমার এসিস্টে সুন্দর ফিনিশিংয়ে গোল করে রিয়াল মাদ্রিদকে ম্যাচে প্রথমবারের মতোন এগিয়ে নেন ভারানে। প্রথমার্ধে এগিয়ে থেকেই তাই ডেসিংরুমে যায় জিদানের শিষ্যরা।

Image result for real madrid

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে আবারো চলতে থাকে দুই দলের লড়াই। ৫৩ মিনিটে গোলরক্ষককে একা পেয়ে বল জালে জড়াতে পারেনি বেনজেমা৷ ৭০ মিনিটে আবারো বেনজেমার মিস, এবারও এসিস্টে ছিলেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র।

তবে ৯ মিনিট পর স্বাগতিকদের আর হতাশ করে নি করিম মোস্তফা বেনজেমা। ভালভার্দে ব্যাকপাস থেকে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে রিয়াল মাদ্রিদের জয় একপ্রকার নিশ্চিত করেন দেন এই ফ্রেঞ্চম্যান।

আর ৮২ মিনিটে টানা দুই হলুদ কার্ড খেয়ে মাঠ ছাড়ে ফারলান্ড মেন্ডি, যদিও ১০ জনের রিয়াল মাদ্রিদকে পেয়েও গোল আদায় করতে পারেনি এস্পানিওল। ফলে লা লীগার ইতিহাসে প্রথম দল হিসাবে ১৭০০ ম্যাচ জয়ের এক অসাধারণ কীর্তি করে মাঠ ছাড়ে রিয়াল মাদ্রিদ।

এই ম্যাচ জয়ের পর টেবিলের টপে আছে জিদানের শিষ্যরা। অন্যদিকে ১১ গোলের পাশাপাশি ৫ এসিস্ট করে আপাতত লা-লীগার সর্বোচ্চ গোল সংগ্রাহকের পাশাপাশি টপ এসিস্টের তালিকাতেও লিওনেল মেসির সাথে যৌথভাবে শীর্ষে আছেন রিয়াল মাদ্রিদের প্রানপুরুষ করিম মোস্তফা বেনজেমা।