বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সাথে সম্পর্ক শেষ হলো পল স্মলির

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সাথে সম্পর্ক শেষ হলো পল স্মলির। স্মলি দীর্ঘমেয়াদী চুক্তি করতে চাইলেও সামনের বছর এপ্রিলে ফেডারেশনের নির্বাচন থাকায় এই শর্তে চুক্তি নবায়ন করতে চায়নি ফেডারেশন। টেকনিক্যাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক ডিরেক্টরের চলে যাওয়ায় নারী ফুটবল আর কোচেস ট্রেনিং কার্যক্রম নিয়ে দুশ্চিন্তার কথা জানিয়েছেন সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।

শেষবারের মতো ফুটবল ফেডারেশনে টেকনিক্যাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক ডিরেক্টর পল স্মলি। ২০১৬ থেকে ৩ বছরের জন্য দায়িত্ব পেয়েছিলেন এই ব্রিটিশ। চলতি জুলাইয়ে আগের চুক্তি শেষ হওয়ার পর থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ছিলেন সাময়িক মেয়াদে। ২০২০ সালের এপ্রিলে হবে নির্বাচন। তাই বাফুফের কার্যনির্বাহী কমিটি চায়নি এখন আর দীর্ঘমেয়াদী চুক্তি করতে।

ভূটানে অনূর্ধ্ব ১৫ সাফ শেষ করে দেশে ফেরার পর দুপক্ষ মিলে নেয় চূড়ান্ত এই সিদ্ধান্ত। তবে কাজী সালাউদ্দিন আবারো সভাপতি নির্বাচিত হলে বাংলাদেশে ফিরে আসতে চান স্মলি।

পল স্মলি জানান, চলে যাওয়ার কারণ ২টি। একটি হলো ক্যারিয়ারে নতুন কোন অভিজ্ঞতা অর্জন করতে চাই। আর এখানে ৪ বছরের চুক্তি করতে চেয়েছিলোম আমি। দীর্ঘমেয়াদী চুক্তি হলে সেই পরিকল্পনা মতো কাজ করা যায়। সামনে ফেডারেশন নির্বাচন। এই অনিশ্চয়তায় থাকতে চাইনি।

স্মলির অধীনেই ছিলো নারী ফুটবল আর কোচেস ট্রেনিং কার্যক্রম। বিগত ৩ বছরে সাড়ে তিনশ নতুন কোচ সম্পন্ন করেছেন কোচিং ডিগ্রি। স্মলির বিদায়ে তাই ধাক্কা খেলো ফেডারেশনের নতুন কোচ তৈরির মিশনও।

নভেম্বরে এশিয়ার নতুন কোন দেশের ফুটবল উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় দেখা যাবে স্মলিকে। এদিকে বাফুফে প্রেসিডেন্ট কাজী সালাউদ্দিন প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে, নির্বাচনে জয়ী হলে আবারও তাকে ফিরিয়ে আনা হবে।