ফের সন্ত্রাসী হামলা পাকিস্তান ক্রিকেটে!

0
44

ধীরেধীরে পাকিস্তানের মাঠে ফিরছে ক্রিকেট। প্রায় দশবছর কোনো দলই যেতে রাজি হয়নি সেখানে। কারন একটাই, সন্ত্রাসবাদ। আজ যখন সব ঠিকঠাক ভাবে শুরু হলো তখনই আবার তেমনই এক ঘটনা ঘটে গেলো!

২০০৯ এ লাহোরে শ্রীলঙ্কা জাতীয় দলের বাসে সন্ত্রাসীদের গুলির ধাক্কা সয়ে পাকিস্তান যখন একটু সোজা হয়ে দাঁড়ালো ঠিক তখনই আবারো সন্ত্রাসীদের গুলি আঘাত হানলো সেখানে। গতকাল বৃহস্পতিবার খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের কোহাট বিভাগের ওরাকজাই জেলার দ্রাদার মামজাই অঞ্চলে আমন ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ চলাকালীন এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন ছানায় গ্রাউন্ড নামের সেই মাঠে ফাইনাল ম্যাচ উপভোগ করতে বেশ ভালো দর্শকই ছিলেন। তাদের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক নেতারাও ছিলেন। ম্যাচ শুরু হওয়ার সাথে সাথেই মাঠের পাশের পাহাড় থেকে এলোপাথাড়ি গুলিবর্ষন আরম্ভ হয়। গোলাগুলি শুরু হতেই আম্পায়ার, খেলোয়াড়সহ দর্শকবৃন্দ এদিকওদিক ছোটাছুটি শুরু করেন। সৌভাগ্যবশত কারো গায়েই গুলি লাগেনি। স্বভাবতই বাতিল হয়ে যায় ম্যাচ।

সেই জেলার পুলিশ কর্মকর্তা নিসার আহমাদ জানিয়েছেন, মাঠের পাশের সেই পাহাড়ি অঞ্চলে সন্ত্রাসবাদের খবর তাদের কানে এসেছিলো আগে। তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান তিনি।

স্বদেশে ক্রিকেটের স্বাদ ২০০৯ সালের গোলাগুলিতে প্রায় ভুলেই গেছে পাকিস্তানের মানুষেরা। ২০১১ সালে ভারত-বাংলাদেশের সাথে তারাও ছিলো বিশ্বকাপ আয়োজক, সেটাও বাতিল হয়ে যায় অনিশ্চয়তার কারনে। এখন আবার এমন আরেকটি ঘটনা! আর কবে পাকিস্তানের ঘরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরতে পারবে সেটাই দেখার বিষয়।