আফ্রিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের সূচী স্থগিত

0
28

জুন থেকে আফ্রিকা অঞ্চলে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব শুরুর পূর্বনির্ধারিত সূচি স্থগিত করেছে ফিফা। বৃহস্পতিবার ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের খেলা স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিশ্ব ফুটবলের এই নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের মত মান সম্পন্ন স্টেডিয়ামের ঘাটতি এবং কোভিড পরিস্থিতির কারণে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাছাই পর্ব স্থগিত করেছে ফিফা। এর ফলে সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বরে নতুন সূচীতে অনুষ্ঠিত হবে বাছাইপর্বের ম্যাচ। ১০ গ্রুপের বিজয়ী দল উন্নীত হবে আগামী মার্চের ফাইনাল পর্বে।

কাতারের ৩২ জাতির বিশ্বকাপে আফ্রিকা অঞ্চল থেকে ৫টি দল খেলার সুযোগ রয়েছে। তবে গ্রীষ্মকালে মধ্যপ্রাচ্যের তীব্র উষ্ণতার কারণে এবারের বিশ^কাপটি গতানুগতিক বছরের মধ্যভাগের পরিবর্তে অনুষ্ঠিত হবে নভেম্বর- ডিসেম্বরে।

জুনে বাছাইপর্বের ম্যাচের জন্য দুই দিন নির্ধারিত ছিল। তবে এই সময় বছাইপর্বের খেলা আযোজনে অপরাগত প্রকাশ করেছে বুরকিনা ফাসো, লাইবেরিয়া, মারাভি, মালি, নামিবিয়া, নাইজার, সেনেগাল ও সিয়েরা লিওন।
এদিকে কঙ্গো, লিবিয়া ও উগান্ডার মুল ভেন্যুগুলো বাতিল হলেও আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের উপযুক্ত বিকল্প ভেন্যু তাদের রয়েছে।।

অনেক দেশের জাতীয় স্টেডিয়ামগুলোর উন্নয়নের প্রতি জোর দিয়েছেন কনফেডারেশন অব আফ্রিকান ফুটবলের (সিএএফ) নবনিযুক্ত সভাপতি দক্ষিণ আফ্রিকার প্যাট্রিস মোটসেপ।জুন থেকে আফ্রিকা অঞ্চলে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব শুরুর পূর্বনির্ধারিত সূচি স্থগিত করেছে ফিফা। বৃহস্পতিবার ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের খেলা স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিশ্ব ফুটবলের এই নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের মত মান সম্পন্ন স্টেডিয়ামের ঘাটতি এবং কোভিড পরিস্থিতির কারণে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাছাই পর্ব স্থগিত করেছে ফিফা। এর ফলে সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বরে ˜িগুন সুচিতে অনুষ্ঠিত হবে বাছাইপর্বের ম্যাচ। ১০ গ্রুপের বিজয়ী দল উন্নীত হবে আগামী মার্চের ফাইনাল পর্বে।

কাতারের ৩২ জাতির বিশ্বকাপে আফ্রিকা অঞ্চল থেকে ৫টি দল খেলার সুযোগ রয়েছে। তবে গ্রীষ্মকালে মধ্যপ্রাচ্যের তীব্র উষ্ণতার কারণে এবারের বিশ^কাপটি গতানুগতিক বছরের মধ্যভাগের পরিবর্তে অনুষ্ঠিত হবে নভেম্বর- ডিসেম্বরে।

জুনে বাছাইপর্বের ম্যাচের জন্য দুই দিন নির্ধারিত ছিল। তবে এই সময় বছাইপর্বের খেলা আযোজনে অপরাগত প্রকাশ করেছে বুরকিনা ফাসো, লাইবেরিয়া, মারাভি, মালি, নামিবিয়া, নাইজার, সেনেগাল ও সিয়েরা লিওন।
এদিকে কঙ্গো, লিবিয়া ও উগান্ডার মুল ভেন্যুগুলো বাতিল হলেও আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের উপযুক্ত বিকল্প ভেন্যু তাদের রয়েছে।।

অনেক দেশের জাতীয় স্টেডিয়ামগুলোর উন্নয়নের প্রতি জোর দিয়েছেন কনফেডারেশন অব আফ্রিকান ফুটবলের (সিএএফ) নবনিযুক্ত সভাপতি দক্ষিণ আফ্রিকার প্যাট্রিস মোটসেপ।