গোল্ডেন স্যুর দৌড়ে ইমোবিল-লেওয়ান্ডস্কিরা, নেই মেসি-রণ!

ইউরোপিয়ান সেরা ক্লাবগুলোর লড়াই চলছে বেশ, দ্বৈরথ চলছে খেলোয়াড়দের মধ্যেও। আজ এ গোল করলো তা কাল অন্যজন করছে হ্যাট্ট্রিক। কখনো বা লেওয়ান্ডস্কি গোল সংগ্রাহকের তালিকায় সবার উপরে কখনো বা চিরো ইমোবিল।

নতুন মৌসুমে ইউরোপের সেরা ৫ লিগের লড়াইয়ে আসছে নতুনত্ব। মেসি-রোনালদোর পাশ কেটে এগিয়ে যাচ্ছে অনেকেই। বয়সের ভারে আস্তে আস্তে থমকে যাওয়া দুই জাদুকর আপাতত যেন একটু পিছিয়েই আছে।

আপাতত এই মৌসুমে লা-লিগায় সর্বোচ্চ গোল স্কোরারের তালিকায় সবার উপরে করিম বেনজেমা। ১০ গোল নিয়ে তিনি আছেন একদম উঁচুতে৷ ৯ গোল নিয়ে ঠিক তার পরেই আছেন সদ্য ব্যালন ডি অর জেতা লিওনেল আন্দ্রেস মেসি। আর ৮ গোল নিয়ে যৌথভাবে তিনজন আছে একই কাতারে৷

রিয়াল মাদ্রিদের করিম বেনজেমা

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ১৩ গোল নিয়ে সবার উপরে জেমি ভার্ডি। ১০ গোল নিয়ে তারপরের স্থান টা যৌথভাবে আর্সেনালের অবামেয়াং আর চেলসির উদিয়মান আব্রাহামের। যদিও ইঞ্জুরির জন্য খানিকটা পিছিয়ে পড়ার সম্ভাবনা আছে চেলসির এই উঠতি তারকার৷ আর ৯ গোল নিয়ে তালিকায় তৃতীয় স্থানে আছেন ম্যানসিটির সার্জিও আগুয়েরো।

বুন্দেসলিগায় ১৬ গোল নিয়ে খানিকটা এগিয়ে আছে রবার্ট লেওয়ানডস্কি, ১৩ গোল নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছেন টিমো ওয়ার্নার। আর ১০ গোল নিয়ে তালিকার তিন নম্বরে আছেন হেনিংস।

ঐদিকে ফ্রান্সের লিগ ১ এ ১০ গোল নিয়ে সবার উপরে আছেন লিওনের মুসা ডেম্বেলে। ৯ গোল নিয়ে আবার যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থানে আছেন বেন ইয়াদার এবং ডিয়ালো। তালিকার তৃতীয় স্থানে আছেন ৮ গোল করা অসিমেন।

আর ইতালিতে আপাতত সবার ধরা-ছোঁয়ার বাইরে আছেন ১৭ গোল করা ল্যাজিওর চিরো ইমোবিল। ১০ গোল নিয়ে দ্বিতীয়তে এই মৌসুমেই ইতালিতে পাড়ি জমানো ইন্টার মিলানের লুকাকু। আর ৮ গোল নিয়ে যৌথভাবে তৃতীয় স্থানে আছেন মার্টিনেজ আর মুরেল। মাত্র ৬ গোল করা রোনালদো তাই আপাতত নেই কোন হিসাবেই।

Image result for ciro immobile
ল্যাজিওর চিরো ইমোবিল

অন্যদিকে ইউরোপের সেরা ৫ লিগে সেরা এসিস্ট দাতাদের তালিকায়ে লা-লিগায় ৫ এসিস্ট নিয়ে সবার উপরে আছেন যথারীতি লিওনেল আন্দ্রেস মেসি। আর দ্বিতীয় স্থানে থাকা মোট ১৩ জনেরই এসিস্ট সংখ্যা সমান ৪ টা করে। যে তালিকায় আছেন বেনজেমা, মড্রিচ, ওদেগার্ড, রদ্রিগো, কার্ভাহালের মতো ফুটবলাররা।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে গোল সহায়তায় সবার উপরে আছেন ম্যানসিটির কেভিন ডি ব্রুইন। এই মৌসুমে উড়তে থাকা এই বেলজিয়ান জাদুকরের ঝুলিতে আছে মোট ৯ টা এসিস্ট। তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা টটেনহ্যামের সনের এসিস্ট মোট ৬ টা। তালিকার তিনে ৫ এসিস্ট নিয়ে আছে মোট তিনজন। লিভারপুলের আর্নোল্ড, রবার্টসন এবং ম্যানসিটির ডেভিড সিলভা।

Image result for de bruyne
ম্যানচেস্টার সিটির কেভিন ডি ব্রুইন

জার্মানীর বুন্দেস লিগায় এসিস্টের তালিকায় সবার উপরে আছেন ৮ এসিস্ট করা মুলার। ৬ এসিস্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে তিনজন, যাদের মধ্যে অন্যতম থর্গান হ্যাজার্ড আর উঠতি সানচো।

সিরি আতে ৯ এসিস্ট নিয়ে সবার উপরে আলবার্তো। ৬ এসিস্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে পেলেগ্রিনী। আর ৫ এসিস্ট করে মোট পাঁচজন আছেন তৃতীয় স্থানে।

অন্যদিকে লিগ ১ এ ৭ এসিস্ট করে যৌথভাবে সবার উপরে দুজন। ৫ এসিস্ট করা ডি মারিয়া আছেন দ্বিতীয় স্থানে। আর ৪ এসিস্ট করা মোট দুজন আছেন তালিকার তিন নম্বরে।

গোল আর এসিস্ট মিলিয়ে ইউরোপের সেরা ৫ লিগের সেরা তিনজন আপাতত সিরি আর চিরো ইমোবিল ১৭ গোল+৫ এসিস্ট। এরপরেই আছেন বুন্দেসলিগার টিমো ওয়ার্নার ১৩ গোল+৫ এসিস্ট। তালিকার তৃতীয় স্থানেও আছেন বুন্দেসলিগারই অন্য খেলোয়াড় রবার্ট লেওয়ানডস্কি ১৬ গোল+১ এসিস্ট।

আর ইউরোপিয়ান গোল্ডেন স্যু জেতার দৌড়ে সবার উপরে আছেন ১৭ গোল করা চিরো ইমোবিল। এরপরেই ১৬ গোল করা রবার্ট লেওয়ানডস্কি। আর ১৩ গোল নিয়ে যৌথভাবে তৃতীয় স্থানে আছেন জেমি ভার্ডি এবং টিমো ওয়ার্নার।

মৌসুম এখনো শুরুর দিকে, পথ এখনো বহুদূর। লম্বা রেসের এই প্রতিযোগিতায় শেষ পর্যন্ত যে টিকে থাকবে তার হাতেই উঠবে মূল্যবান সোনার জুতো!