করোনাভাইরাস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন সাকিব আল হাসান

0
6

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান। তাই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) কর্তৃক আয়োজিত কাল থেকে শুরু হওয়া ফিটনেস পরীক্ষায় অংশ নিবেন সাকিব।

বিসিবির চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরি বলেন, ‘সাকিবের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।’

আইসিসি কর্তৃক এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষে বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট দিয়ে ক্রিকেটে ফিরবেন সাকিব। যা আগামী ২১ বা ২২ নভেম্বর থেকে শুরু হবে।

সাকিবসহ ১১২জন ক্রিকেটারের ফিটনেস পরীক্ষা হবে আগামী ৯ ও ১০ নভেম্বর। বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে ড্রাফটের তালিকায় থাকা বাধ্যতামূলক ক্রিকেটারদের ফিটনেস পরীক্ষা দিতে হবে।

আগামী ১২ নভেম্বর টুর্নামেন্টের প্লেয়ার্স ড্রাফট অনুষ্ঠিত হবে।

তবে সাকিবের ফিটনেস পরীক্ষা নিয়ে মোটেও চিন্তিত নয় বিসিবি। তারপরও নিজেকে প্রমান করতে হলে সাকিবকে ফিটনেস পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে।

বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান বলেন, ‘আমি মনে করি না, ফিটনেস পরীক্ষা তার জন্য সমস্যার কিছু হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তবে ফিটনেসের একটা স্ট্যান্ডার্ড আছে। সে স্ট্যান্ডার্ডে তো সবাইকে মেনে চলতে হবে। সাকিব বিদেশ থেকে এসেছে এবং এক বছর ধরে ক্রিকেটের বাইরে ছিল। আমরা বিশ্বাস করি, সে সময় পেলে নিজের ফিটনেসের উন্নতি করতে পারবে। তাই তাকে নিয়ে আমরা চিন্তিত নই।’

বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল না হলে, ঐ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে পারতেন সাকিব। কিন্তু এখন ঘরোয়া আসর দিয়েই ক্রিকেটে ফিরবেন তিনি।

গত অক্টোবরে শ্রীলঙ্কা সিরিজকে সামনে রেখে গত ২ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরেন সাকিব। ঐ সময় বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) মোহাম্মদ সালাউদ্দিন ও নাজমুল আবেদিন ফাহিমের অধীনে চার সপ্তাহের ফিটনেস অনুশীলন ক্যাম্প করেন তিনি। অনুশীলন পর্বটি একেবারে রুদ্ধদার অবস্থায় হয়েছিলো।