এক আসরে ব্যাটিংয়ে সেরা রুশো, বোলিংয়ে সাকিব!

আগামী ১১ ই ডিসেম্বর সপ্তম আসরে পদার্পণ করবে বিপিএল। প্রথমবারের মতোন বঙ্গবন্ধু প্রিমিয়ার লিগের নামকরণে মাঠে গড়াচ্ছে টি-টোয়েন্টির এই প্রতিযোগিতা।

প্রতি আসরেই পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে কেউ বল হাতে কেউবা ব্যাট হাতে নিজেদের মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন। এক আসরের সেরা ব্যাটসম্যান কিংবা আসরের সেরা বোলারের পুরষ্কারও বাগিয়ে নিয়েছেন। কখনো তাতে হয়েছে পরিবর্তন, কখনো বা একই ক্রিকেটার হয়েছেন সেরা।

আসুন জেনে নেই এক আসরে বিপিএলের রাজাদের গল্পঃ

এক আসরের সেরা ব্যাটসম্যানঃ

১. রাইলি রুশোঃ Image result for rilee roosouw  south africa cricketer

দক্ষিণ আফ্রিকার এই মারকুটে ব্যাটসম্যান গত আসরে খেলেছিলেন রংপুর রাইডার্সের হয়ে। তাতে ১৪ ম্যাচের ১৩ ইনিংসে ৬৯.৭৫ এভারেজে রান করেছেন ৫৫৮। স্ট্রাইক রেট ১৫০.০০। ৫ হাফসেঞ্চুরির পাশাপাশি দেখা পেয়েছেন ১ সেঞ্চুরিরও। স্বাভাবিকভাবেই, বিপিএলের এক আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় সবার উপরে এই ড্যাশিং ব্যাটসম্যান।

২. আহমেদ শেহজাদঃ

Image result for ahmed shehzad

২০১১/১২ সালে বরিশাল বার্নাসের হয়ে খেলা পাকিস্তানি ওপেনার আহমেদ শেহজাদ ঐ আসরের ছিলেন সেরা রান সংগ্রাহক। মোট ১২ ম্যাচের ১২ ইনিংসে ব্যাট হাতে ৪৮.৬০ এভারেজে ১৫৫.৭৬ স্ট্রাইক রেটে রান করেছেন ৪৮৬। সেঞ্চুরি আছে ১ টা, ফিফটি মোট ৪ টা। বিপিএলের ইতিহাসের এক আসরের সেরা রান সংগ্রাহকদের তালিকাতে তিনি আছেন দ্বিতীয় স্থানে।

৩. ক্রিস গেইলঃ

টি-টোয়েন্টির ফেরিওয়ালা নামে খ্যাত এই ক্যারিবিয়ান টর্নেডো বিপিএলের ইতিহাসের সেরা রান সংগ্রাহকদের সেরা পাঁচের ৩য় স্থানে আছেন। ২০১৭/১৮ তে রংপুর রাইডার্সের হয়ে ১১ ম্যাচের ১১ ইনিংসে ৫৩.৮৮ এভারেজে রান করেছিলেন ৪৮৫। স্ট্রাইক রেট ১৭৬.৩৬। ২ সেঞ্চুরির পাশাপাশি ঐ আসরে হাকিয়েছিলেন ২ টা ফিফটিও।

৪. তামিম ইকবালঃ

বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা ওপেনার এই ব্যাটসম্যান ২০১৬/২০১৭ আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে ১৩ ম্যাচের ১৩ ইনিংসে ব্যাট হাতে করেছিলেন ৪৭৬ রান। এভারেজ ৪৩.২৭। স্ট্রাইক রেট ১১৫.৮১। সেঞ্চুরির দেখা না পেলেও ফিফটির স্পর্শ পেয়েছিলেন মোট ৬ বার। স্বভাবতই বিপিএলের ইতিহাসে এক আসরের সেরা ব্যাটসম্যানদের তালিকায় চতুর্থ স্থানে এই ওপেনার।

৫. তামিম ইকবালঃ

বিপিএলের এক আসরের সেরাদের তালিকায় ব্যাটসম্যান হিসেবে পঞ্চম স্থানেও আছেন তামিম ইকবাল। ২০১৭/২০১৮ তে কুমিল্লার হয়েই ১৪ ম্যাচের ১৪ ইনিংসে ব্যাট হাতে করেছিলেন ৪৬৭ রান। এভারেজ ৩৮.৯১। স্ট্রাইক রেট ১৩৩.৮১। ফিফটি হাকিয়েছিলেন মোট ২ বার। সেঞ্চুরির ছোঁয়া নিয়েছেন একবার। তাও আসরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ফাইনালে। অপরাজিত থেকেছিলেন ১৪১ রানে, দলকে শিরোপা জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছিলেন।

এক আসরের সেরা বোলারঃ

১. সাকিব আল হাসানঃ

ঢাকা ডাইনামাইটসের হয়ে গত আসরেই মোট ১৫ ম্যাচে ৫৬.০ ওভার বল করে ২ মেইডেনে নিয়েছিলেন ২৩ উইকেট। ইকোনমি ৭.২৫। চার উইকেটও পেয়েছিলেন ১ বার। সেরা বোলিং ফিগার ১৬ রানে ৪ উইকেট। বিপিএলের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত এক আসরে সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহকের তালিকাতেও তাই সবার উপরে বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

২. কেভন কুপারঃ

Image result for kevin cooper in bpl

বরিশালের বুলসের হয়ে ২০১৫/২০১৬ সালে খেলা এই বোলার ঐ আসরে ৯ ম্যাচে ৩৫ ওভার বল করে শিকার করেছিলেন ২২ উইকেট। ইকোনমি রেট ৫.৮৫। ইনিংসে সেরা ১৫ রানে ৫ উইকেট। চার উইকেটও পেয়েছেন ১ বার, পাঁচ উইকেটও পেয়েছেন ১ বার।

৩. সাকিব আল হাসানঃ

বিপিএলের ইতিহাসের এক আসরের সেরা বোলারদের তালিকায় তৃতীয় স্থানেও আছেন সাকিব আল হাসান। ঢাকা ডাইনামাইটসের হয়ে ২০১৭/২০১৮ আসরে ১৩ ম্যাচে ৪৪.৫ ওভার বল করে ৬.৪৯ ইকোনমি রেটে শিকার করেছেন ২২ উইকেট। সেরা বোলিং ফিগার ১৬ রানে ৫ উইকেট। চার উইকেটের মতো পাঁচ উইকেটও পেয়েছেন সমান ১ বার।

৪. তাসকিন আহমেদঃ

Bangladesh’s Taskin Ahmed celebrates the dismissal of Afghanistan’s Rahmat Shah during the third one-day international cricket match in Dhaka, Bangladesh, Saturday, Oct. 1, 2016. (AP Photo/A.M. Ahad)

গত আসরে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে ক্যারিয়ারের সেরা বিপিএল পার করেন এই পেসার। ইঞ্জুরিতে পড়ার আগে খেলেছিলেন ১২ ম্যাচ। তাতে ৩৭.১ ওভার বল করে উইকেট শিকার করেছিলেন মোট ২২ টা। ইকোনমি রেট ৮.৫৫। চার উইকেট ১ বার পেলেও পাঁচ উইকেট পান নি একবারও।

৫. মাশরাফি বিন মোর্ত্তাজাঃ

Image result for mashrafe

রংপুর রাইডার্সের হয়ে গত আসরে ১৪ ম্যাচে ৫৫ ওভার বল করে ২২ উইকেট নিয়েছিলেন। ইকোনমি রেট ৭.০৩। সেরা বোলিং ফিগার ১১ রানে ৪ উইকেট। পাঁচ উইকেট কখনো না পেলেও চার উইকেট পেয়েছেন ১ বার।

নতুন আসরে কে হবেন সেরা, সেরাদের তালিকায় কে উঠে আসবেন, তা দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেটপ্রেমীরা!