ইউরোপের ফুটবল সাম্রাজ্যে রাজত্ব করা এক রাজার গল্প

0
31

ম্যানচেষ্টার ইউনাইটেডের স্কাউট বব বিসপ তৎকালীন কোচ ম্যাট বাসবিকে একটা লেজেন্ড্রি টেলিগ্রাম পাঠান! টেলিগ্রামটির ভাষ্য ছিলো অনেকটা এরকম, তোমার জন্য একটা সুখবর আছে, আমার মনে হচ্ছে ১৯৬১ সালের করা ক্লাবের জন্য সেরা সাইনিংটা পেয়ে গেছি! নর্দান আয়ারলেন্ডের বেলফোর্টে ১৯৪৬ সালের ২২ মে জন্মানো ১৫ বছরের এক তরুণ ছিলেন সেই সেরা সাইনিং। যার নাম ছিলো জর্জ বেষ্ট। ইলেক্ট্রিক স্পিড, অসাধারণ স্টামিনা, মারাত্মক শ্যুটিং এবিলিটি তাকে করেছিলো সময়ের সেরা ফুটবলার! ইউনাইটেডে এসে প্রথম ২ বছর একাডেমির টিমে সময় দিয়ে ১৭ বছর বয়সে রাজ্যাভিষেক ঘটে এক হেয়ালি রাজার।

প্রথম বছরেই তিনি লিডস ইউনাইটেডের কাছ থেকে প্রথম বিভাগের লীগ শিরোপা তুলে দেন ম্যানচেষ্টার ইউনাইটেডের ঘরে। ববি চার্লটন আর ডেনিশ ল কে নিয়ে গড়ে তোলেন হলি ট্রিও এটাকিং টিম। যার ভয়ে তখন পুরো ইউরোপ কাপতো। তার এবিলিটির জন্য তৎকালিন ইংলিশ দলগুলোর ডিফেন্ডাররা রাফ ট্যাকেলের আশ্রয় নিয়েও পার পেতো না। মূলত তিনি একটা সময় জুরে পুরো বিশ্বকে মাতিয়ে রেখেছিলেন তার নান্দনিক মুগ্ধতায়।

১৯৬৬ সালে বেনফিকার বিরুদ্ধে জোড়া গোল করেন ইউরোপিয়ান কাপের কোয়ার্টারে! পর্তুগীজ মিডিয়া তার খেলায় মুগ্ধ হয়ে তাকে ‘এল বেট্যাল’ নাম দেয়। পরের বছর আবারও হলি ট্রিও লিগ শিরোপা ওঠান ম্যানচেস্টারের ঘরে। ১৯৬৮ সালে বেনফিকাকে হারিয়ে প্রথম ইংলিশ টিম হিসেবে ইউরোপিয়ান কাপ জেতে ইউনাইটেড। বাসবি বেবস এর মর্মান্তিক দুর্ঘটনার পর এই প্রথম ইউরোপে মাথা তুলে দাড়ায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। এবং ঐ বছরের ব্যালন ডি’অর ওঠে ২২ বছর বয়সি বেষ্টের হাতে।

৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৭০ এ তিনি নর্দাম্পটন টাউন এর বিরুদ্ধে একাই করেন ৬ গোল। এর ৫৯ বছর আগে ‘হারল্ড হালস্’ সুইনডন টাউনের বিরুদ্ধে এই কীর্তি করেছিলেন।

Image result for george best pictures

মূলত তার লম্বা চুল, অসাধারণ ব্যক্তিত্ব, পপ স্টার লুক তাকে পৃথিবীর প্রথম ফুটবলার হিসেবে বৃটিশ ম্যাগাজিনগুলো নিজেদের কভারে লুফে নিয়েছিলো। তবে তার নিয়মিত লেট নাইট পার্টি, অধিক মদ্যপান, লাগামহীন জীবনব্যবস্থা তাকে ফুটবল থেকে ধীরে ধীরে দুরে সরিয়ে নিতে থাকে। পরের ৬টি বছর তিনি ইউনাইটেডে নিজের ছায়া হয়ে রইলেন। এই ৬ বছরে ইউনাইটেড কোনো শিরোপা ঘরে তুলতে পারেনি। নতুন সাইনিংরা বেষ্টের ধারে কাছেও ইফোর্ট দিতে পারেনি। অবশেষে ১৯৭৪ সালে ৪৭০ ম্যাচে ১৭৯ গোল করা এ এটাকিং মিডফিল্ডার ইউনাইটেডকে বিদায় জানান।

Image result for george best pictures

ইউনাইটেড ছাড়ার পর তিনি স্কটল্যান্ড, অষ্ট্রেলিয়া, ইউএসএ, আয়ারল্যান্ড ও সাউথ আফ্রিকার বেশ কিছু ছোটো ছোটো টিমে খেলেন কিন্তু কোথাও দুই সিজনের বেশি টিকেননি। এ সময়টাতেও তার বেখাপ্পা জীবনধারনের কোনো পরিবর্তন ঘটেনি। অবশেষে ১৯৮৩ সালে ঠিক ২০ বছরের মাথায় তিনি ফুটবলকে বিদায় জানান। নর্দান আয়ারল্যান্ডের হয়ে তিনি ৩৭ টি ম্যাচ খেলে ৯টি গোল করেন। তাকে নর্দান আয়ারল্যান্ডের ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ফুটবলার হিসেবে আখ্যা দেয়া হয়।

ফুটবল থেকে অবসরের পরেও অতিরিক্ত মদ্যপানের কারনে ২০০৫ সালে ৫৯ বছর বয়সে ভবলীলা সাঙ্গ হয় এই অমিত প্রতীভাবান ফুটবলারের। তার জীবনটা একজন এলকোহলিষ্টের করুণ অসাধারণ উদাহরণ হতে পারে।

তার একটি বিখ্যাত উক্তি হলো- “I spent a lot of money on booze, birds and fast cars – the rest I just squandered”