ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে দর্শকের জন্য দরজা খুলতে পারে

0
6

আগামী মে মাসে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শেষ রাউন্ডের ম্যাচে হয়তবা দর্শকদের জন্য স্টেডিয়ামে দরজা খুলে দেয়া হতে পারে। বৃটিশ সরকার কোভিড-১৯ মহামারী কাটিয়ে আগামী ১৭ মে থেকে আউটডোর ইভেন্টগুলো পুনরায় শুরু করার যে পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে তার থেকে এই আভাষই পাওয়া যায়।

এছাড়াও আগামী ২৬ এপ্রিল ওয়েম্বলীতে অনুষ্ঠিতব্য ম্যানচেস্টার সিটি বনাম টটেনহ্যাম হটস্পারের মধ্যকার কারাবাও কাপের ফাইনাল ম্যাচটিতেও সীমিত সংখ্যক দর্শক উপস্থিতির অনুমতি মিলতে পারে। আর এটাই হতে পারে মাঠে দর্শক ফেরানোর পরীক্ষামূলক ম্যাচ।

ডিসেম্বরে প্রিমিয়ার লিগের বিভিন্ন ক্লাবগুলোকে ভাইরাস আক্রমনের ধারা হিসেবে এলাকাভিত্তিক বিভিন্ন জোনে বিভক্ত করা হয়েছিল। জোনভিত্তিক কম সংক্রমনে এলাকাগুলোতে অবস্থিত স্টেডিয়ামে সর্বোচ্চ ২০০০ সমর্থক উপস্থিতির অনুমতি ছিল। এর আগে গত বছর মার্চে প্রথমবারের মত যুক্তরাজ্য জুড়ে লকডাউন শুরু হয়েছিল। এরপর মে মাসে পুনরায় লিগ শুরু হলেও দর্শকবিহীন স্টেডিয়ামেই ম্যাচগুলো আয়োজিত হয়।

সোমবার বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন নিশ্চিত করেছেন মে মাসের মাঝামাঝি থেকে আবারো ক্রীড়া ইভেন্টগুলো দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। যদিও আগামী কয়েক সপ্তাহ ভাইরাস সংক্রমনের বিষয়টিও সরকারের গভীর নজড়ে থাকবে।

তবে বর্তমান পরিকল্পনা অনযায়ী প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলো তাদের ধারনক্ষমতার ২৫ শতাংশ সমর্থক উপস্থিতির অনুমতি পাবে। সে অনুযায়ী প্রতিটি স্টেডিয়ামে প্রায় ১০ হাজার সমর্থক প্রবেশের অনুমতি পাবে।

প্রিমিয়ার লিগের শেষ রাউন্ডের ম্যাচে যদি শেষ পর্যন্ত দর্শক প্রবেশের অনুমতি মিলে তবে এ বছর শিরোপা জয়ী দলটি তাদের সমর্থকদের নিয়ে তা উদযাপন করতে পারবে। গত বছর মহামারীর কারনে এ্যানফিল্ডে শুন্য স্টেডিয়ামে লিভারপুলকে শিরোপা আনন্দ উদযাপন করতে হয়েছিল।

আগামী ১৭ মে থেকে স্টেডিয়াম খুলে দেয়া হলে তা উয়েফা ২০২০’র জন্যও একটি সুখবর। করোনার কারনে এক বছর পিছিয়ে তা জুন-জুলাইয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ইউরো ২০২০’র ম্যাচগুলো ওয়েম্বলী ছাড়াও গ্লাসগোর হ্যাম্পডেন পার্কে অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে। ইউরোপের ১২টি শহরে এবারের এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হবে। ওয়েম্বলীতে অনুষ্ঠিত হবে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ম্যাচ।